ঋণ শোধ করছেন মেসি!

অন্য দিগন্ত ডেস্ক | Mar 15, 2020 06:44 am
মেসি

মেসি - সংগৃহীত

 

একেই বলা যায়, বন্ধুত্বের মূল্য পরিশোধ! বার্সেলোনায় শুরুর দিনে লিওনেল মেসির গাইড ছিলেন রোনাল্ডিনহো গাউচো। কাতালন ক্লাবটির জার্সি গায়ে চাপিয়ে লিওর প্রথম গোল ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তির পাস থেকেই। বিশ্বখ্যাত ক্লাবে কীভাবে নিজেকে পরিশীলিত করতে হয়, তাও মেসিকে শিখিয়েছেন রোনাল্ডিনহো। মাঠ ও মাঠের বাইরে দু’জনের রসায়ন ছিল দুর্দান্ত।

তারপর ক্রমশ ফোকাস থেকে দূরে সরে গেছেন ব্রাজিলিয়ান প্রতিভাটি। আর ব্যক্তিগত ক্যারিশ্মায় তা ভরাট করেছেন মেসি। রোনাল্ডিনহো সম্পর্কে মেসি বরাবরই শ্রদ্ধাশীল। এমনিতে অন্তর্মুখী হলেও প্রিয় ‘রনি’ নিয়ে অনর্গল কথা বলতে পছন্দ করেন বাঁ পায়ের জাদুকরটি। মাসখানেক আগে স্প্যানিশ রেডিওকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মেসি বলেওছিলেন, ‘এই জায়গায় পৌঁছানোর জন্য রোনাল্ডিনহোর অবদান জীবনে কোনো দিন ভুলব না।’

লিওর সেই বন্ধু রনি এখন প্যারাগুয়ের কারাগারে। জাল পাসপোর্টের দায়ে তিনি ও তার ভাই রবার্তোকে গ্রেফতার করে সে দেশের পুলিশ। সূত্রের খবর, প্রবল আর্থিক অনটনের মধ্যে থাকা রোনাল্ডিনহোর পক্ষে মামলা চালানো কিংবা ক্ষতিপূরণ দেয়ার ক্ষমতা নেই। এই দুঃসময়ে তিনি পাশে পেলেন মেসিকে। প্রিয় বন্ধুর জন্য প্রায় ৩৩ কোটি টাকা খরচ করে আর্জেন্টিনা থেকে প্যারাগুয়েতে চার সদস্যের আইনজীবী দল পাঠাচ্ছেন এলএমটেন। এছাড়া প্রয়োজন হলে ক্ষতিপূরণ বাবদ আরো অর্থ খরচ করতে বিন্দুমাত্র কার্পণ্য করবেন না তিনি।

যাকে মুক্তির স্বাদ দেয়ার জন্য মেসির এই উদ্যোগ সেই রোনাল্ডিনহো অবশ্য কারাগারে বেশ খোশমেজাজেই রয়েছেন। শুক্রবার বন্দিদের নিয়ে আয়োজিত এক ফুটবল প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচে খেলতেও দেখা গেছে তাকে।

বলাই বাহুল্য, সাম্বা স্কিলের ঝলকে কার্যত একাই প্রতিপক্ষকে খড়কুটোর মতো উড়িয়ে দিয়েছেন রনি। তার দল জিতেছে ১১-২ ব্যবধানে। নিজে পাঁচবার লক্ষ্যভেদ করেছেন। সহ-ফুটবলারদের দিয়ে করিয়েছেন বাকি ছ’টি। এই প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন দলের পুরস্কার কী জানেন? একটি ১৬ কেজির শূকর। ক্যাবিনেটে বিশ্বকাপ, কোপা আমেরিকা, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, লা লিগা, স্প্যানিশ সুপার কাপের পদক রয়েছে। ফিফার বর্ষসেরা হয়েছেন দু’বার। সেই রোনাল্ডিনহো এখন কারাবন্দি হয়ে খেলছেন এই বিশেষ পুরস্কারের দিকে তাকিয়ে। ফুটবল প্রথমে তার নেশা, পরে পেশা। এই খেলা তাকে জোগায় বেঁচে থাকার রসদ।
সূত্র : বর্তমান

নতুন দশকে পেলেকে টপকে যাবেন মেসি?
শুরু হয়েছে নতুন বছর। পাশাপাশি নতুন দশকেরও আগমন। এই নতুন দশকেই হয়তো ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন আর্জেন্টিনার ও বার্সেলোনা ক্লাবের তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসি এবং পর্তুগাল ও জুভেন্টাস ক্লাবের ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। গত এক দশকে ফুটবল বিশ্বকে অনেক দিয়েছেন এই দুই তারকা। তাদের স্থান নেয়ার জন্য এখনো কাউকে দেখা যায়নি। যদিও ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার যোগ্য সঙ্গী ছিলেন। কিন্তু ইনজুরি তাকে প্রায় মাঠ থেকে ছিটকে দেয়। তবে ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপে অসাধারণ খেললেও মেসি-রোনাল্ডোর ধারেকাছেও আসতে পারবেন না বলে অনেক বিশ্লেষক মনে করছেন। বছরের পর বছর ধারাবাহিক পারফরম্যান্স দিয়ে এই দু’জন বিশ্ব ফুটবলকে শুধু সমৃদ্ধ নন, সম্পৃক্তও করেছেন।

ক্যারিয়ারের ইতি টানার এই দশকে ফুটবলের কিংবদন্তি পেলের রেকর্ড ভাঙ্গার হাতছানি দিচ্ছেন মেসি। বার্সেলোনার হয়ে আর মাত্র ২৬টি গোল করতে পারলেই তিনি ছাড়িয়ে যাবেন পেলেকে।

নতুন বছরে মেসির লক্ষ্য কী? ব্যক্তিগত কীর্তির থেকে ক্লাবকে সাফল্য এনে দেয়াই তার লক্ষ্য। একাধিক সাক্ষাৎকারে নিজেই এই মনোভাব জানিয়েছেন তিনি। তবে কাতালন ক্লাবের জার্সি গায়ে চাপিয়ে আর ২৬টি লক্ষ্য ভেদ করতে পারলেই মেসি টপকে যাবেন ফুটবলসম্রাট পেলেকে। স্যান্টোসের হয়ে ৬৪৩টি গোল রয়েছে তার। আর বার্সার হয়ে এখনো পর্যন্ত ৬১৮ বার বিপক্ষের জালে বল ভেড়িয়েছেন মেসি।

এছাড়া বার্সেলোনার হয়ে সর্বাধিক ম্যাচ খেলার রেকর্ডও হাতছানি দিচ্ছে মেসিকে। স্প্যানিশ মিডিও জাভি হার্নান্ডেজ খেলেছেন ৭৬৭টি ম্যাচ। দ্বিতীয় স্থানে মেসি খেলেছেন ৭০৫টি ম্যাচ। তবে পেলে কিংবা জাভি, কেউই মেসির নজরে নেই। কারণ তার চোখ এখন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে।

পরিসংখ্যান বলছে, গত দশ বছরে মেসি ও রোনাল্ডোই বিশ্ব ফুটবলের আকর্ষণের দুই কেন্দ্রবিন্দু। বার্সার প্রাণভোমরা এই পর্বে করেছেন ৫৭৯টি গোল। খুব পিছিয়ে নেই ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোও। তার ঝুলিতে রয়েছে ৫৫৪ গোল।

কেনো বাকিদের ছাপিয়ে এই দু’জনকেই মেগাস্টার তকমা পেয়েছেন? প্রশ্নের উত্তরে গ্যারি লিনেকারের বিশ্লেষণ, ‘পেশার প্রতি এরকম দায়বদ্ধতা এবং নিজেকে ছাপিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখাই মেসি ও রোনাল্ডোর মূলধন। বয়সের সাথে সাথে সাফল্যের খিদেও বাড়ছে দু’জনের। শুধু উঁচু তারে লক্ষ্য বাঁধাই নয়, তা স্পর্শের জন্য কঠিনতম পরিশ্রমই মেসি ও রোনাল্ডোকে এই জায়গায় পৌঁছে দিয়েছে। নেইমার অবশ্যই এদের জায়গা নিতে পারতো। কিন্তু ফুটবলের প্রতি ওর সেই পর্যায়ে ভালোবাসা বা দায়বদ্ধতা নেই।’


 

ko cuce /div>

দৈনিক নয়াদিগন্তের মাসিক প্রকাশনা

সম্পাদক: আলমগীর মহিউদ্দিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: সালাহউদ্দিন বাবর
বার্তা সম্পাদক: মাসুমুর রহমান খলিলী


Email: [email protected]

যোগাযোগ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।  ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Follow Us