করোনাই নয়, ঠিকমতো হাত ধুলে দূরে থাকবে শত রোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক | Apr 08, 2020 10:28 am
ঠিকমতো হাত ধুলে দূরে থাকবে শত রোগ

ঠিকমতো হাত ধুলে দূরে থাকবে শত রোগ - সংগৃহীত

 

নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে বদ্ধপরিকর গোটা ভারত। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফেও জারি হয়েছে বিভিন্ন নির্দেশিকা। উপদেশগুলির মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সাবান বা অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধোওয়া। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের চিকিৎসকরা বলছেন, শুধু নোভেল করোনা ভাইরাসই নয়, বিভিন্ন রোগ আটকে দিতে পারে সঠিকভাবে হাত ধোওয়ার অভ্যেস।

বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ আশিস মিত্র জানাচ্ছেন, অ্যাডিনোভাইরাস, নরো ভাইরাস, হেপাটাইটিস এ এবং ই ভাইরাস সংক্রমণের অন্যতম উৎস হল অপরিষ্কার হাত। হাতের মাধ্যমে ভাইরাস সংক্রমণের চাইতে বেশি হয় ব্যাকটেরিয়া, প্রোটোজোয়া সংক্রমণ।

উদাহরণ হিসেবে সালমোনেল্লা ব্যাকটেরিয়া থেকে টাইফয়েড, শিগেল্লা থেকে আমাশয়, এশেরিশিয়া কোলাই সংক্রমণ থেকে ডায়ারিয়া, জিয়ার্ডিয়া-এর মতো পরজীবী থেকে পেটের অসুখ, কৃমির ডিম থেকে পেটের সংক্রমণের কথা বলা যায়। তিনি জানান, রোগগুলি ছড়ায় নানা ভাবে। বিশেষত বাজারে গিয়ে মাছ-মাংস, সব্জি হাতে ধরে বেছে বেছে নেওয়ার অভ্যেস আছে অনেকের। অথচ বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পর হাত ধুতে ভুলে যান তাঁরা। অনেকেই হাত ধুতে ভুলে যান টয়লেট ব্যবহারের পরেও। এরপর অপরিষ্কার হাতেই মুখ-চোখ-নাকে হাত দিলেই সংক্রমণ ঘটার আশঙ্কা থাকে। কিছু নির্দিষ্ট পেশার সঙ্গে জড়িত মানুষেরও বারবার হাত ধোওয়ার দরকার রয়েছে। বিশেষত চিকিৎসক, নার্সদের বারবার হাত ধোওয়ার প্রয়োজন। কারণ তারা বিভিন্ন রোগীর সংস্পর্শে আসেন।

এছাড়া পরিচারিকা, আয়া ও সাফাইকর্মীদেরও হাত ধুতে হবে বারবার। বারবার হাত ধুলে তাঁদের নিজের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত থাকবে। আর জি কর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাঃ জ্যোতির্ময় পাল যোগ করেন, সুনির্দিষ্ট সমীক্ষা না থাকলেও ধারণা করা যায়, সাধারণভাবে আমরা অজান্তেই প্রতি ঘণ্টায় গড়ে ৪০ বার মুখে হাত দিই। মুখ অর্থাৎ নাক-চোখ-মুখ, ঠোঁট, থুতনিকে বোঝানো হচ্ছে।

এসএসকেএম হাসপাতালের ক্রিটিকাল কেয়ার মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মনোতোষ সূত্রধর বলেন, সঠিক নিয়ম মেনে হাত ধুলে প্রায় ২০ থেকে ৪০ শতাংশ ক্ষেত্রে নানা রোগ থেকে দূরে থাকতে পারেন সাধারণ মানুষ। চিকিৎসকদের মধ্যে পরিচালিত এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, প্রতিবার রোগীকে পরীক্ষা করার পর সঠিক নিয়ম মেনে হাত ধুলে ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রে ডাক্তারবাবুরাও বিভিন্ন ধরনের ক্রস ইনফেকশন থেকে দূরে থাকতে পারেন। ক্রস ইনফেকশন বলতে বোঝায়, রোগীর থেকে চিকিৎসক এবং চিকিৎসক থেকে অন্য রোগীর মধ্যে জীবাণু সংক্রমণ। তিনি আরও বলেন, সাধারণ মানুষের প্রত্যেকবার টয়লেট ব্যবহারের আগে ও পরে, খাবার তৈরির আগে ও পরে, খাবার খাওয়ার আগে ও পরে, হাত দিয়ে হাঁচি, কাশি, সর্দির বেগ সামলানোর পরে সাবান দিয়ে কমপক্ষে ৪০ সেকেন্ড দিয়ে হাত ধোওয়া উচিত।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হোমিওপ্যাথির (সল্টলেক) প্রাক্তন অধিকর্তা ডাঃ অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘কোভিড ১৯’ শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত সাধারণ মানুষ পথের ধারে ফুচকা, এগরোল, চা-বিস্কুট খাওয়ার আগে একবারও হাত ধোওয়ার কথা ভাবতেন না। বড় রেস্তরাঁতে ঢুকেও খাবার খাওয়ার আগে হাত ধোয়ার কথা অনেকের মাথায় আসত না। নিদেনপক্ষে স্যানিটাইজার ব্যবহারেও ছিল প্রবল উদাসীনতা।

সূত্র : বর্তমান


 

ko cuce /div>

দৈনিক নয়াদিগন্তের মাসিক প্রকাশনা

সম্পাদক: আলমগীর মহিউদ্দিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: সালাহউদ্দিন বাবর
বার্তা সম্পাদক: মাসুমুর রহমান খলিলী


Email: [email protected]

যোগাযোগ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।  ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Follow Us