ভারতের ব্যর্থ চন্দ্র মিশনে উত্তর কোরিয়া হ্যাকারদের হামলা!

Nov 09, 2019 09:37 am
ভারতের ব্যর্থ চন্দ্র মিশনে উত্তর কোরিয়া হ্যাকারদের হামলা!

 

ভারতের মহাকাশ যখন চাঁদের পিঠে অবতরণ করার চেষ্টা করেছিল, তখন দেশটির মহাকাশ সংস্থার ওপর উত্তর কোরিয়ার হ্যাকাররা আক্রমণ করেছিল বলে মনে করা হচ্ছে। এ কারণেই ভারতের ওই অভিযান ব্যর্থ হয়ে যায়।
সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে ৫টি সরকারি সংস্থা আক্রান্ত হয়েছিল, তার একটি হলো ভারতের স্পেস রিসার্চ অর্গ্যানাইজেশন (ইসরো)। এছাড়া একটি পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ওপরও হ্যাকারা আক্রমণ করেছিল বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।

কর্মীরা সম্ভবত উত্তর কোরিয়ার স্প্যামারদের কাছ থেকে আসা ফিশিং ইমেইল খুলে তাদের সিস্টেমে ম্যালওয়্যার ইনস্টল করে ফেলেছিলেন।

কর্মকর্তারা অবশ্য তাদের চাঁদ অভিযানের সময় সাইবার হামলার কথা অস্বীকার করেছেন। চাঁদে অবতরণ করার আগে ভারতীয় বিজ্ঞানীরা মহাকাশ যানটির সাথে যেগাযোগ হারিয়ে ফেলে।
ভারতের বৃহত্তম পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রেও হামলা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের মতে, ইসরোকে সেপ্টেম্বরে চন্দ্রযান-২ চাঁদ মিশনের সময় সাইবার হামলার ব্যাপারে হুঁশিয়ার করে দেয়া হয়েছিল।
মহাকাশ সংস্থাটি জোর দিয়ে বলেছে, হ্যাকিং চেষ্টার ফলে তাদের সিস্টেমে কোনো ক্ষতি করা সম্ভব হয়নি।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ মহাকাশ শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার জোর সমর্থক। তিনি চলতি বছরের প্রথম দিকে ঘোষণা করেছিলেন যে তার দেশ ‘মহাকাশ সুপার লিগে’ প্রবেশ করেছে।
ভারত মার্চে একটি উপগ্রহ ভূপাতিত করে। এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর চতুর্থ দেশ হিসেবে এই কৃতিত্বের অধিকারী হলো।

অবশ্য সেপ্টেম্বরে চান্দ্রযান-২-এর সাথে যোগাযোগ হারিয়ে ফেললে ভারতের মহাকাশ কর্মসূচিতে বিপর্যয় সৃষ্টি হয়।
সংস্থাটি এখন উত্তর কোরিয়ার স্প্যামারদের সম্ভাব্য হুমকির বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।
গত সপ্তাহে ভারতের জ্বালানি কর্মকর্তারা কুন্দনকুলাম পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সাইবার হামলা হওয়ার কথা স্বীকার করেন। এর আগে তারা এর কথা অস্বীকার করেছিলেন।
পরমাণু কর্মকর্তারা বলেন, তবে ম্যালওয়্যার প্লান্টটির কন্ট্রোল সিস্টেমে আঘাত না হেনে প্রশাসিক কম্পিউটারে আঘাত হানে।
এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এক ব্যবহারকারীর আক্রান্ত পিসি পরীক্ষা করে বিষয়টি জানা গেছে। ওই পিসিটি প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনাকারী নেটওয়ার্কের সাথে সংযুক্ত ছিল।
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ডিট্র্যাক ব্যবহার করে হামলাটি হয়। এ ধরনের ম্যালওয়্যার হ্যাকিং গ্রুপ ল্যাজারাস ব্যবহার করে।

আর মার্কিন কর্তৃপক্ষ মনে করে, ল্যাজারাস গ্রুপটি নিয়ন্ত্রণ করে উত্তর কোরিয়া সরকার।
চলতি বছরের প্রথম দিকে মার্কিন সরকারের অবরোধের মুখে পড়েছে গ্রুপটি। তাদের বিরুদ্ধে সামরিক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে টার্গেট করার অভিযোগ আনা হয়েছে।
স্থাপনাটি ২০১৩ সালে চালু করা হয়। এতে রাশিয়ার নির্মিত চুল্লি রয়েছে।

সূত্র : মেইলঅনলাইন